Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

ছোট ছোট বানান ভুলে, বড় বড় ‘খেসারত’

পিপলস ভয়েস ডেস্ক:
ভুল আমাদের সবারই হয়। এ পৃথিবীতে সবচেয়ে সতর্ক ও দক্ষ লোকটিরও ভুল হয়। ধরুন ‘বানান’ ভুলের কথা। প্রতিদিন আমরা লিখতে গিয়ে কত-শত বানান ভুল লিখি। কিন্তু তাই বলে কি, টাকা ছাপাতে গিয়ে ব্যাংক নোটের ভুল মেনে নেওয়া যায়? নাকি মেনে নেওয়া যায় নাসার রকেটে পাঠাতে গিয়ে কোডিংয়ে ভুলের দায়? এছাড়া, মার্কিন প্রেসিডেন্টের টুইটার পোস্টের ভুল বানানও দৃষ্টিকটু। এজন্য কিছু কিছু ভুলের খেসারত দিতে হয় অনেক বেশি।

‘covfefe’ মানে কি?
২০১৭ সালের ৩১ মে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটারে লিখেছিলেন, “Despite the constant negative press covfefe,”. তার সাত বর্ণের ‘covfefe’ শব্দের অর্থ খুঁজতে গিয়ে ডিকশনারি হাতড়িয়েছেন অনেক ইংরেজি বোদ্ধারা। পরে বুঝা গেল ইংরেজি ভাষায় ‘covfefe’ নামে কোনো শব্দ নেই। ‘coverage’ লিখতে গিয়ে ট্রাম্প ভুলে ‘covfefe’ লিখে ফেলেছেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রাম্পের এই ভুল নিয়ে অনেক হাস্যরস হয়েছে। মিডিয়াও ছাড়েনি ট্রাম্পকে।

সবচেয়ে ব্যয়বহুল হাইফেন (-)
মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা’র এই বানান ভুলটিকে বলা হয় সবচেয়ে ব্যয়বহুল বানান ভুলের ঘটনা। ১২ জুলাই ১৯৬২ সালে ভেনাস-এর উদ্দেশে উৎক্ষেপণ করা হয় মার্নিয়ার-০১ রকেট। কিন্তু উৎক্ষেপণের পাঁচ মিনিটের মধ্যে নভোযানটি বিস্ফোরিত হয়। এই রকেটটি উৎক্ষেপণ প্রকল্পে খরচ হয়েছিল ১৮.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। পরবর্তীতে অনুসন্ধানে জানা যায়, উৎক্ষেপণ প্রক্রিয়ায় কম্পিউটার স্ক্রিপ্টে ছোট একটি ভুল ছিল। সেখানে কোডিং-এ একটি হাইফেন (-) বাদ পড়ে গিয়েছিল। তাই এই দুর্ঘটনা ঘটে। বিজ্ঞান গবেষক ও লেখক আর্থার সি ক্লার্ক ওই বাদ যাওয়া হাইফেন’টিকে উল্লেখ করেছেন ইতিহাসের, সবচেয়ে ব্যয়বহুল হাইফেন হিসেবে।

হ্যারি পটারে ভুল
বিখ্যাত লেখক জে কে রাউলিং এর হ্যারি পটার সিরিজের প্রথম বইটির নাম, ‘Harry Potter and the Philosopher’s Stone’। এই বইটির কাভারের অপর পাশের শিরোনামে এভাবে ‘philosopher’ লেখা হয়েছিল। এছাড়া, ৫৩ নম্বর পাতায়ও ছিল ভুল। পরবর্তীতে তা সংশোধন করা হয়। তবে অবাক করার মতো বিষয় এই ভুল বানানে বইয়ের একটি কপি লন্ডনের নিলামে বিক্রি হয়েছিল ৬৮ হাজার পাউন্ডেরও বেশি মূল্যে।

এমা ওয়াটসনের ট্যাটুতে ভুল
নারী আন্দোলন কর্মী হিসেবে পরিচিতি আছে এমা ওয়াটসনের। গত বছর তিনি শরীরে ট্যাটু এঁকে সম্মান দেখিয়েছিলেন নারী তখনকার আন্দোলনকে। যেখানে লেখা ছিল, ‘Times Up’, তবে শুদ্ধ লেখাটি হবে ‘Time’s Up’। এমা’র এই ভুলটি ব্যাপক আলোচনার জন্ম দেয়। শুধু একটা ‘অ্যাপস্ট্রোপিয়েসের’ জন্য হাসির খোরাক হতে হলো এমা ওয়াটসনকে।

ব্যাংক নোটে ভুল
বানান ভুলের ক্ষেত্রে সম্প্রতি সবচেয়ে বড় ভুলের ঘটনাটি ঘটিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার রিজার্ভ ব্যাংক। তারা গত বছরের অক্টোবরে বাজারে ছাড়ে ৫০ ডলারের একটি ব্যাংক নোট। ব্যাপক জনপ্রিয়তা পাওয়া ওই নোটটিতে বেশ বড় ধরনের একটি ভুল ধরা পড়েছে। ছোট করে লেখা একটি বক্তব্যে responsibility বানান ভুল করে responsibilty লেখা হয়েছে। প্রায় ৪ কোটি ৬০ লাখ ব্যাংক নোটে এই ভুল বানান বা ‘টাইপো’ ছড়িয়েছে। যার আনুমানিক অর্থমূল্য ২.৩ বিলিয়ন অস্ট্রেলীয় ডলার। পরবর্তী সংস্করণে এই ভুল সংশোধন করা হবে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলীয় কর্তৃপক্ষ।

পত্রিকায় ভুল
আমরা সবাই জানি পত্রিকায় সংবাদে ভুল হওয়াটা মোটামুটি অমার্জনীয়। তবে তা যদি নিউ ইয়র্ক টাইমস বা গার্ডিয়ানের মতো পত্রিকায় ঘটে তবে তা নিঃসন্দেহে অবাক হওয়ার মতোই। ২০১৪ সালের ১৯ মে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে নিয়ে লেখা একটি সংবাদে ভুল করেছিল নিউ ইয়র্ক টাইমস। পত্রিকার সাব-হেডারে ‘response’ কে ভুল করে লেখা হয়েছিল ‘reponse’ শব্দে। এদিকে দ্য গার্ডিয়ান তো এক কাঠি বেশি সরস। এটি তার নামই ভুল করে লিখেছে ‘Grauniad’। যদিও বানানটি হবে ‘Gaurdian’।