Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ

ত্যাগের মাস নাকি ভোগের মাস?

আলাউদ্দিন আল আজাদ
হৈ হৈ কা-, রৈ রৈ ব্যাপার। কারো কোনোদিকে তাকানোর ফুরসত নেই। কাঁচা বাজার, স্টোর, ফলের দোকান, মাছের দোকান, মাংসের দোকান যেখানেই যান দেখবেন সবাই বড় বড় ব্যাগ ভরে ধুমাইয়া কেনাকাটা করছে। আমি যে এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্সে থাকি সেখানে ১৪০টি ফ্লাট। গেট দিয়ে বিশাল বস্তা ঢুকছে নানা রকম বাজার নিয়ে। ০৭-০৫-১৯ সকালে কাঁচাবাজরে গিয়ে দেখি যে যা পারছে শুধু কিনছে, দরদাম করার সময় নেই। পছন্দ হলেই হাক দিচ্ছে আর বড় বড় মাছ ব্যাগে ঢুকে যাচ্ছে। আপনি যেকোনো মুসলিম পরিবারকে জিজ্ঞেস করবেন, কোন মাসে সাংসারিক খরচ বেশি। সঙ্গে সঙ্গে বলে দিবে রোজার মাসে। ভোগ্য পণ্যের এই বিশাল চাহিদা মিটানোর জন্য কয়েক হাজার কোটি টাকার বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী আমদানি করা হয়েছে। এই বিপুল চাহিদা আর অসৎ, মুনাফাখোর ব্যবসায়ীদের কারণে সব জিনিসের দাম

রাতারাতি দ্বিগুণ, তিনগুণ। তাহলে যে মাসে খরচ বেশি, বাজার সওদা বেশি, খায় বেশি সেই মাস কীভাবে সংযমের মাস হয়? এটা নিসন্দেহে ভোগের মাস, বেশি খাওয়ার মাস। এ তো গেলো খাওয়া-দাওয়ার ব্যাপার। এরপর আসেন মানুষের আচরণ। রমজান মাসে ঘুষ ছাড়া কোথাও কাজ হয়? খুন, খারাবি, চুরি, ডাকাতি, ধর্ষণ কম হয়? মলম পার্টি, অজ্ঞান পাটি, প্রতারক, ভেজালকারী, নকলকারী, মজুতদারী, মুনাফাখোরের দৌরাত্ম্য কমে? একটুও না। রোজা শুধু লোক দেখানো আনুষ্ঠানিকতা বৈ আর কিছু নয়। ধর্মে কি আছে বা ধর্মীয় বিধান কি সেটা বড় কথা নয়, বাস্তবে কি চলছে এটাই বড় কথা। ফেসবুক থেকে