Templates by BIGtheme NET
সদ্যপ্রাপ্ত সংবাদ
মালয়েশিয়ার আইএনটিআইতে অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান ৮ অক্টোবর

মালয়েশিয়ার আইএনটিআইতে অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠান ৮ অক্টোবর

আহমাদুল কবির, মালয়েশিয়া প্রতিনিধি:
আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য তুলে ধরতে চেষ্টা করছে মালয়েশিয়ায় অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা। এ লক্ষ্যকে সামনে রেখে আগামী ৮ অক্টোবর মালয়েশিয়ার আইএনটিআই ইন্টা: ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা করতে যাচ্ছে ২০১৯ বেষ্ট পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড ও কালচারাল নাইট অনুষ্ঠান। এরই মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে চলছে রিহার্সেল। শুধু তাই নয় দেশীয় খাবার প্রদর্শনেও চলছে ষ্টল সাজানো। স্টল সাজিয়ে লোকশিল্প, দেশীয় খাবারসহ নানা সামগ্রী প্রদর্শনীতে ব্যস্ত রয়েছে শিক্ষার্থীরা।

এই উৎসবে সুদান, ফিলিস্তিন, পাকিস্তান, রাশিয়া, চীন, ভারত, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর, আমেরিকাসহ বিশ্বের ৬০টি দেশের শিক্ষার্থীরা অংশ নিবেন বেষ্ট পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড ও কালচারাল নাইট অনুষ্ঠানে।

অনুষ্ঠানের অর্গানাইজারের দায়িত্বে রয়েছেন, ইন্টারন্যাশনাল ষ্টোডেন্ট সোসাইটির প্রেসিডেন্ট উমাইর চৌধূরী ও ইন্টারন্যাশনাল ষ্টোডেন্ট সোসাইটির মাল্টিমিডিয়া ডাইরেক্টর ওয়ালিদ চৌধূরী। আর পারফরমেন্সে রয়েছেন, সায়েম, ফরহাদ, অমিত, সিয়াম, সাইফ, আনিকা, রিতি, উসমিলা প্রমূখ। এর আগে ২০১৬ ও ২০১৭ সালে আমরা বেষ্ট পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড পেয়েছিলেন বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা।

আইএনটিআই এর ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্ট সোসাইটির প্রেসিডেন্ট উমাইর চৌধূরী বলেন, মালয়েশিয়ার এ ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের মাঝে পারস্পরিক ঐক্য ও সম্প্রীতির পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে উত্তরোত্তর তা বৃদ্ধি করে চলেছে। পাশাপাশি সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ও লালন করা, শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে কার্যকরি ভূমিকা পালন, সুস্থ চিন্তাধারা লালন ও সৃজনশীল কর্মকান্ডে উদ্বুদ্ধ করা এবং মধ্যপন্থা অবলম্বনে কার্যকরি পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে ক্যাম্পাসে ইতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি করেছে। আগামি ৮ অক্টোবর বাংলাদেশি কালচারাল নাইট ও ২০১৬,২০১৭ বেষ্ট পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে আমাদের দেশের মান আরোও উজ্জ্বল করা আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ স্টুডেন্ট নেতা।

ব্যাচেলর ইন ইনফরমেশন টেকনোলজির ছাত্র ওয়ালিদ বিন নাসির বলেন, ২০১৬ ও ২০১৭ সালে আমরা বেষ্ট পারফরমেন্স অ্যাওয়ার্ড আমরা পেয়েছি। এবারও আশা করছি বেষ্ট অ্যাওয়ার্ডটি পাব। তিনি বলেন, প্রবাসে এসে সবচেয়ে বাংলাদেশকে আমরা মিস করি। বিদেশের মাটিতে দেশিয় সাংস্কৃতি তুলে ধরাই আমাদের মূল লক্ষ্য। আমাদের পারফরমেন্সের মধ্য দিয়ে বিদেশিরা আমাদের দেশ সম্পর্কে জানবে। এ ছাড়া বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের পতাকা উড়াতে পারি তখন আমাদের গর্বের সীমা থাকে না।